স্বপ্ন’র আলোয় আলোকিত কুমিল্লার বানঘর গ্রাম

সেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্ন’র আলোয় আলোকিত হয়েছে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের বানঘর গ্রাম। সংগঠনটির একঝাঁক তরুণ সোলার ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করে নিজ গ্রামকে আলোকিত করে এলাকার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

সংগঠনটির উদ্যোগে গ্রামের বিভিন্ন স্থানে স্থাপন করা হয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক ল্যাম্পপোস্ট। সোলারের আলোর ঝলকানি পাল্টে দিয়েছে ঐ গ্রামের চিত্র। গ্রামটি শতভাগ বিদ্যুতায়িত হলেও রাতের বেলায় লোডশেডিংয়ের সময় সোলারের আলোয় আলোকিত থাকে সারা গ্রাম।

গ্রামীণ সড়কের দু’পাশ, মসজিদ, স্কুল, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন স্থানে শোভা পেয়েছে এ সোলার প্যানেল। সম্প্রতি গ্রামব্যাপী সোলার প্যানেল স্থাপনের পর রাতের বেলায় দৃষ্টিনন্দন এ দৃশ্য দেখতে উৎসুক নারী, পুরুষ ভীড় জমায়। অজপাড়া গাঁয়ে এ যেন শহরের ছোঁয়া।

গ্রামকে আলোকিত করার এ নান্দনিক আয়োজন ছাড়াও এ সংগঠনের উদ্যোগে শিক্ষাবৃত্তি, বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরণ, গরিব, অসহায়দের সহযোগীতা, দুর্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরনসহ নানা কার্যক্রমে এলাকায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে সামাজিক সংগঠন ‘স্বপ্ন’।

প্রায় ৯ লক্ষাধিক টাকা ব্যায়ে গ্রামব্যাপী সোলার ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন বানঘর গ্রামে প্রথম বড় ধরনের কোন উন্নয়নমূলক কাজ বলে জানালেন সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক মঞ্জুরুর রহমান।

গ্রামের উন্নয়নে সংগঠনটির প্রধান পৃষ্ঠপোষক কানাডা প্রবাসী আলাউদ্দিন জানান, বানঘর গ্রামকে উপজেলায় একটি আদর্শ গ্রাম হিসেবে তুলে ধরাই হচ্ছে এ সংগঠনের উদ্দেশ্য। তিনি গ্রামের বিত্তবান, প্রবাসী ও তরুণদের সহযোগিতায় এ কাজ বাস্তবায়নের কথা জানান। আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার পাশাপাশি এ গ্রামের বেকার যুবকদের সাবলম্বী ও শিক্ষিত সমাজ গঠনে ভবিষ্যতে নানা পরিকল্পনা হাতে নেয়ার কথা জানান তিনি।

গ্রামের প্রবীণ ব্যক্তি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি হামিদিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক উপাধাক্ষ্য মাও. মোশাররফ হোসেন জানান, ল্যাম্পপোস্ট এর আলোয় সারারাত গ্রাম আলোকিত থাকায় গ্রামে চুরি, ডাকাতিসহ অনাকাংখিত কোন ঘটনা ঘটছে না। গ্রাম উন্নয়নে ভূমিকা রাখার জন্য তিনি কানাডা প্রবাসী আলাউদ্দিন পাটোয়ারী, সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক মঞ্জুরুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলামের সাথে এ বিষয়ে কথা হলে তিনি গ্রামোন্নয়নে সোলার ল্যাম্পপোস্ট স্থাপনের জন্য ‘স্বপ্ন’ র সদস্যদের ধন্যবাদ জানান। তিনি জানান সরকারিভাবে এ কার্যক্রম অব্যহত থাকার পাশাপাশি তাদের এ উদ্যেগে উন্নয়নে নতুনমাত্রা যোগ হয়েছে। শোভা বর্ধনে গ্রামটিকে নান্দনিক আখ্যায়িত করে রাতের বেলা এ গ্রামের ভিতরে প্রবেশ করলে শহুরেভাব পরিলক্ষিত হওয়ার কথা জানান তিনি।

তিনি আরো জানান সম্প্রতি বর্তমান সরকারের মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গ্রাম হবে শহর এমন ঘোষনার পর স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সারা দেশে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।



মন্তব্য চালু নেই