হিজাব নিষিদ্ধের আইন পাস ফ্রান্সে, নিন্দার ঝড়

ফ্রান্সে প্রকাশ্যে হিজাব পরা নিষিদ্ধের প্রস্তাব পাস হয়েছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আল জাজিরা জানায়, সিনেটে ১৮ বছরের কম বয়সী মুসলিম মেয়েদের প্রকাশ্যে হিজাব পরা নিষিদ্ধের প্রস্তাব পাস হয়।

এদিকে এমন এক বিতর্কিত বিল পাস করার পর তা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে। অনেকেই বিলের বিরোধিতা করে ‘#হ্যান্ডসঅফমাইহিজাব’ লিখে প্রতিবাদে অংশ নিচ্ছেন।

ফরাসি সরকার জানিয়েছে, বিচ্ছিন্নতাবাদ বিরোধী এই আইনের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের ধর্ম নিরপেক্ষতা ব্যবস্থাকে গতিশীল করা। কিন্তু সমালোচকরা বলছে, মূলত দেশটির মুসলিম সংখ্যালঘুদের টার্গেট করেই এমন আইন এনেছে ফ্রান্সের সরকার।

এর আগে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রো হিজাব নিষিদ্ধের কথা জানিয়েছিলেন। এরপরই দেশটির সংসদে (সিনেটে) বিলটির পক্ষে ভোট পড়ে। বিলটি আইনে পরিণত হওয়ার পর ১৮ বছরের কম বয়সী ফ্রান্সের মুসলিম মেয়েদের জনসমক্ষে হিজাব পরা নিষিদ্ধ হবে।

এ ছাড়া যেসব অভিভাবক ধর্মীয় পোশাক পরেন তাদের ওপর কোনো স্কুলে ভ্রমণ, পাবলিক সুইমিং পুলে যাওয়া বা এ জাতীয় আরও কিছু কাজে অংশ নেয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে।

এদিকে এমন বিতর্কিত আইনের কঠোর বিরোধিতা করেছেন দেশটির অসংখ্য মানুষ। এই আইনকে ‘ইসলামবিরোধী আইন’ বলে আখ্যায়িত করেছেন অনেকেই।

টুইটারে মানার নামে একজন লিখেছেন, ‘ফ্রান্সে ১৫ বছর বয়সীদের যৌনতায় সম্মতি আছে। আর ১৮ বছরের কম বয়সীদের হিজাব পরার অনুমতি নেই। এটি হিজাববিরোধী কোনো আইন নয়। এটি ইসলামবিরোধী আইন। #হ্যান্ডসঅফমাইহিজাব, #ফ্রান্সহিজাবব্যান’।

নাজওয়া জেবিয়ান নামে একজন লিখেছেন, ‘জোর করে কাউকে হিজাব পরানো যেমন অন্যায়, তেমনি জোর করে কাউকে হিজাব খুলতে বাধ্য করাও অন্যায়। এটি একান্তই তার ব্যক্তিগত ব্যাপার’।

এ ছাড়া এই আইনের মাধ্যমে সংখ্যলঘুদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করা হচ্ছে বলেও মত দিয়েছেন ফ্রান্সের বেশিরভাগ নাগরিক।



মন্তব্য চালু নেই