মেইন ম্যেনু

২৫ দিনের সন্তান রেখে ডেঙ্গুতে মারা গেলেন মা

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে মাত্র ২৫ দিনের সন্তান রেখে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন এক মা। চামেলি আক্তার (২০) নামে ওই মা পেশায় একজন নার্স।

বুধবার সকালে রাজধানীর মগবাজারের রাজমনো স্পেশালাইজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। রাত ৮ টার দিকে তার মরদেহ গ্রামের বাড়ি উপজেলার আরুয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ শালজানা গ্রামে পৌছে।

ডেঙ্গু ধরা পড়ার পর মানিকগঞ্জ সদর হাসাপাতালে পাঁচদিন চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার ভোরে তাকে ঢাকায় পাঠান চিকিৎসকরা।

চামেলি আক্তার মানিকগঞ্জ মমতাজ চক্ষু হাসপাতালের সহকারী নার্স হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

চামেলি আক্তারের স্বামী সবুজ মিয়া জানান, গত বৃহস্পতিবার ডাক্তারি পরীক্ষায় তার স্ত্রীর ডেঙ্গু শনাক্ত হয়। ওই দিনই মানিকগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে হঠাৎ তার অবস্থার অবনতি হয়। ভোরে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওযার পরামর্শ দেন। দ্রুত তাকে ঢাকায় নেয়া হয়।ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগীর চাপ বেশি থাকায় পরিচিত একজনের পরামর্শে তাকে পাশের একটি কমিউনিটি হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু সেখানকার চিকিৎসকরা রোগীকে দ্রুত আইসিওতে নেয়ার পরামর্শ দেন। পরে রাজধানীর মগবাজারের রাজমনো স্পেশালাইজড হাসপাতালে আইসিওতে ভর্তি করা হয় চামেলিকে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

সবুজ মিয়া জানান, গত বছরের আগস্ট মাসে তাদের বিয়ে হয়। মাত্র ২৫ দিন আগে চামেলির কোলজুড়ে জন্ম নিয়েছে একটি পুত্র সন্তান। যার নাম রাখা হয়েছে সায়মন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই মা হারা হলেন সায়মন।

চামেলি আক্তারের মা দুলালী বেগমও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার সকাল ৯ টায় তাকে মানিকগঞ্জ মুন্নু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শেষ বারের মতো মেয়েকে দেখাতে তাকে হাসপাতালে থেকে বাড়িতে নিয়ে আসেন স্বজনরা।



মন্তব্য চালু নেই