শিরোনাম:

৫ বছর আগে ‘রাইস’ সিনেমার প্রচারে অঘটন, অবশেষে মামলা থেকে মুক্তি শাহরুখের

শাহরুখের সিনেমা মানে দর্শক-ভক্তদের মাঝে এক বাড়তি উন্মাদনা। যখন জনসাধারণের মধ্যে শাহরুখের হঠাৎ আবির্ভাব ঘটে, সেই সময় মানুষের আবেগ ধরে রাখা দায়। ঠিক এমনই এক পরিস্থিতি ঘটেছিল ৫ বছর আগে।

শাহরুখ খান তার ২০১৭ সালে ‘রাইস’ সিনেমার প্রচারে কাউকে কিছু না জানিয়ে হঠাৎই জনসাধারণের মাঝে এসে উপস্থিত হয়েছিলেন, আর তাতেই ঘটেছিল বিপত্তি।

‘রাইস’ সিনেমার প্রচারে শাহরুখ খান গুজরাতের ভাদোদারা স্টেশনে হঠাৎ উপস্থিত হয়েছিলেন। সিনেমার প্রচারের জন্য সাধারণের মাঝে মিশে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে তারই মধ্যে ঘটে অঘটন। পরিকল্পনা ছিল টানা ১৭ ঘণ্টা ট্রেনে চেপে মুম্বাই থেকে তিনি দিল্লি পৌঁছাবেন এবং সফরের মাঝে সিনেমার প্রচার করবেন।

সে সময় শাহরুখকে বিভিন্ন স্টেশনে নেমে পড়তেও দেখা গিয়েছিল । তবে ভাদোদারা স্টেশনে তিনি পৌঁছাতেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। এতটাই জমায়েত হয়েছিল সেখানে যে পুলিশ লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হন। সেই সময় ঘটনাস্থলে ফরিদ খান নামক এক ব্যক্তি প্ল্যাটফর্মে পড়ে পদপিষ্ট হয়ে যান। তড়িঘড়ি হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

সেই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ভক্তের মৃত্যুর জেরে তোলপাড় হয়েছিল মিডিয়া। এরপরই ভাদোদারার নিম্ন আদালতে বলিউড সুপারস্টারের বিরুদ্ধে মৃত ব্যক্তির পরিবারের সদস্যরা দায়ের করেছিল ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৪৭ , ১৪৯ , ৪২৭ , ১২০ ধারার মামলা।

শাহরুখের বিরুদ্ধে সব অভিযোগ খারিজ করে দেওয়ার আবেদন জানিয়ে অভিনেতার আইনজীবীরা গুজরাত হাইকোর্টে একটি পিটিশন দাখিল করেছিলেন, অবশেষে সেই রায় জানাল আদালত।

গুজরাত হাইকোর্টের রায়ে বড়সড় স্বস্তিতে বলিউড বাদশাহ। পাঁচ বছরের অপেক্ষা শেষে আইনি ঝামেলা থেকে মুক্তি পেলেন। শাহরুখের নামের দায়ের হওয়া ফৌজদারি মামলা অবশেষে খারিজ হলো হাইকোর্ট থেকে।
এমন তথ্য প্রকাশ করেছেন ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমস।