৭ই মার্চের ভাষণ মুক্তিযুদ্ধে প্রেরণা যুগিয়েছিল বীর সেনানীদের : এনডিপি

বঙ্গবন্ধুর ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ভাষণ মুক্তিযুদ্ধের পুরো নয় মাস প্রেরণা যুগিয়েছিল মুক্তিকামী বীর সেনানীদের মন্তব্য করে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা ও মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা বলেন, সেদিন বঙ্গবন্ধুর ভাষণ বাঙালিকে চমকে দিয়েছিল বাঙালির পক্ষে তার প্রত্যয়ী উচ্চারণে।

শনিবার (৬ মার্চ) ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, ৭ই মার্চে বঙ্গবন্ধুর ভাষণে সাধারণ মানুষ স্বাধীনতার দিক নির্দেশনা পেয়েছিল। রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই স্লোগানের মধ্য দিয়ে এ ভূখণ্ডে সচেতন প্রতিবাদী রাজনীতির সূত্রপাত। বিকাশ বিবর্তনের পথ ধরে সেটাই হয়ে উঠেছিল ‘তোমার আমার ঠিকানা, পদ্মা মেঘনা যমুনা’।

নেতৃদ্বয় বলেন, উথাল-পাতাল রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে বাঙালি জীবনে আকস্মিক নয়, অবশ্যম্ভাবীভাবেই আসে ৭ই মার্চ। সামনে জনসমুদ্র। মাথার উপরে পাকিস্তানী জঙ্গি বিমানের গর্জন। তবে বিমানের চাইতেও বেশি বজ্র নিনাদে বঙ্গবন্ধু উচ্চারণ করেছিলেন, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।

তারা বলেন, সেদিন মানুষ যা প্রত্যাশা করছিল বঙ্গবন্ধুর কাছ থেকে, মানুষ যে আকাঙ্ক্ষায় সমবেত হয়েছিল, তাদের স্লোগানের মধ্য দিয়ে সেই প্রত্যাশাটা ফুটে বের হয়েছিল। জনগনের সেই আকাঙ্খারই বঙ্গবন্ধুর প্রতিফলন ঘটেছিলেন তার ভাষণের মধ্য দিয়ে ।



মন্তব্য চালু নেই