শিরোনাম:

আগামী নির্বাচন হবে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ : কাদের

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, নির্বাচনের দেড় বছর বাকি থাকলেও আগামী নির্বাচন হবে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। আওয়ামী লীগ বিরোধী সব দল একত্রিত হবে। তাই আওয়ামী লীগে প্রয়োজন ঐক্য ঐক্য ঐক্য। ঐক্যের বিকল্প নেই।

মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে ‘শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

কাদের বলেন, টানা দুইবার ক্ষমতায় থাকার কারণে উন্নয়ন হয়েছে অনেক বেশি। তবে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য একটা দলের পরপর চারবার ক্ষমতায় থাকা প্রয়োজন।

‘এ সরকার যদি কনটিনিউ না করে তাহলে সরকারের উন্নয়ন বন্ধ হয়ে যেতে পারে যেগুলো শেষ হতে আরও কিছু সময় লাগবে’ মন্তব্য করেন সেতুমন্ত্রী।

কাদের বলেন, বিএনপি ভিশনের বিপরীতে ভিশন দিয়ে বলছে চাঙ্গা হয়ে গেছে। অথচ অর্ভন্তরীণ কোন্দলের কারণে তারা সভা করতে পারে না। আওয়ামী লীগকে অনুসরণ করে বিএনপি যদি ভিশন দিয়ে থাকে তাহলে বলবো নেতিবাচক রাজনীতি থেকে ইতিবাচক ধারায় ফিরছে বিএনপি।

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৯৮১ সালের ১৭ই মে, শূন্যতা পূর্ণতা পায় ১৯৭২ এর ১০ই জানুয়ারির মতো। রাজনীতির পথ বড় ঝুকিপূর্ণ ও দুর্গম পথ। ৭৫ পরবর্তীতে সবচে সফল রাজনীতিকের নাম শেখ হাসিনা। তবে এখনো ষড়যন্ত্র শেখ হাসিনাকে তাড়া করছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স।

সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন।