শিরোনাম:

টানা ১৩ সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর শেয়ারবাজারে দরপতন

টানা ১৩ সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর গত সপ্তাহে দেশের শেয়ারবাজারে কিছুটা দরপতন হয়েছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমায় সবকটি মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। সেই সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। তবে এরপরও বেড়েছে বড় অঙ্কের বাজার মূলধন।

প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সপ্তাহ শেষে বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৬৫১ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৩ লাখ ৮৫ হাজার ৬৩২ কোটি টাকা। অর্থাৎ ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ৯ হাজার ১৯ কোটি টাকা। বাজার মূলধন বাড়ার অর্থ তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ার ও ইউনিটের দাম সম্মিলিতভাবে ওই পরিমাণ বেড়েছ।

এদিকে গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১২৫ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৪৭ শতাংশ। এর আগে টানা ১৩ সপ্তাহের উত্থানে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক বাড়ে এক হাজার ১৪১ পয়েন্ট।

প্রধান মূল্য সূচকের পাশাপাশি ১৩ সপ্তাহ পর পতন হয়েছে ডিএসইর শরিয়াহ সূচক। শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত এ সূচকটি গত সপ্তাহে কমেছে ৩৬ দশমিক ৭৫ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ১৬ শতাংশ। এর আগে টানা ১৩ সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ২৪৫ পয়েন্ট।

বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসইর আরেকটি সূচক ডিএসই-৩০। এ সূচকটি গত সপ্তাহে কমেছে ৬০ দশমিক ৪০ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৪৩ শতাংশ। এর মাধ্যমে ৯ সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর সূচকটি কমল। আগের ৯ সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ৩৯২ পয়েন্ট।

এদিকে গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১২৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২২৪টির। আর ১০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৯১৪ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় এক হাজার ১২৭ কোটি ৬ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ২১২ কোটি ৩২ লাখ টাকা বা ১৮ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৪ হাজার ৫৭৩ কোটি ৭২ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৫ হাজার ৬৩৫ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে এক হাজার ৬১ কোটি ৬১ লাখ টাকা।

গত সপ্তাহে ডিএসইর মোট লেনদেনে ‘এ’ গ্রুপ বা ভালো কোম্পানির অবদান ছিল ৮০ দশমিক ৯৩ শতাংশ। এছাড়া ‘বি’ গ্রুপের অবদান ১৪ দশমিক ৫৫ শতাংশ, ‘জেড’ গ্রুপের ৩ দশমিক ১০ শতাংশ এবং ‘এন’ গ্রুপের এক দশমিক ৪২ শতাংশ অবদান ছিল।

গত সপ্তাহে ডিএসইর মূল বাজারে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হওয়া ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে- বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস, বেক্সিমকো, রূপালী ইনস্যুরেন্স, ব্র্যাক ব্যাংক, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং, নিটল ইনস্যুরেন্স, পূরবী জেনারেল ইনস্যুরেন্স, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল, বাংলাদেশ ফাইনান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এবং রূপালী লাইফ ইনস্যুরেন্স।



মন্তব্য চালু নেই