মেইন ম্যেনু

নামাজ নিয়ে দুই মুসল্লির হাতাহাতি, ঘুষিতে একজনের মৃত্যু

পটুয়াখালীর বাউফলে তারাবির নামাজ আদায়কে কেন্দ্র করে হাতাহাতির একপর্যায়ে একজনের ঘুষিতে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মো. সেলিম হাওলাদার (৫০) নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। রোববার রাত ৯টার দিকে উপজেলার সূর্যমনি ইউনিয়নের ইন্দ্রকুল গ্রামের খালেক হাওলাদার বাড়ির পাঞ্জেগানা মসজিদে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাত পৌনে ৯ টার দিকে স্থানীয় মুসল্লিরা খালেক হাওলাদার বাড়ির পাঞ্জেগানা মসজিদে তারাবির নামাজ আদায় করতে যান। সেখানে ১২ রাকাত নামাজ আদায়ের পরে গোলাম মোস্তফা হাওলাদারের ছেলে মো. সোহাগ হাওলাদার (২৪) বাকি নামাজ আদায় না করে মসজিদ থেকে বের হয়ে যাচ্ছিল। এ সময় মো. সেলিম তাকে বাকি ৮ রাকাত নামাজ আদায় করার জন্য বললে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।

একপর্যায়ে সোহাগ উত্তেজিত হয়ে সেলিমের বুকে ঘুষি মারে। এতে তাৎক্ষণিকভাবে সেলিম অজ্ঞান হয়ে পড়েন। মুসল্লিরা সেলিমকে বাউফল হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর পর সেলিমের লাশ বাড়ি নিয়ে গেলে সেখানে বিষয়টি আপস-রফা করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু পুলিশ খবর পেয়ে সোমবার সকালে লাশ উদ্ধার করে বাউফল থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আযম খান ফারুকী জানান, এ ব্যপারে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পোস্টমর্টেম করার জন্য লাশ পটুয়াখালী জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।



মন্তব্য চালু নেই