মেইন ম্যেনু

ফাটাকেষ্টর মতো চিঠির বাক্স বসালেন শেখ তন্ময়

ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছেন বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময়। বাগেরহাট সদর ও কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে একটি করে ‘চিঠির বাক্স’ স্থাপন করেছেন তিনি।

এ বাক্সে বাগেরহাটের অধিবাসীদের সমস্যা, অভিযোগ লিখে জমা করতে বলেছেন তিনি।

জনগণের কাছে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে শেখ তন্ময় এমন উদ্যোগ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে এই ‘চিঠির বাক্স’ বাগেরহাট সদর ও কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে স্থাপন করা হয়।
ইতিমধ্যে শেখ তন্ময়ের এই ‘চিঠির বাক্সে’ অসংখ্য চিঠি জমা পড়েছে। বাগেরহাটের স্থানীয়রা তাদের অভিযোগ ও প্রত্যাশার কথা চিরকুটে লিখে বাক্সে ফেলছেন।

স্থানীয়রা অনেকেই বিষয়টিকে কলকাতার সিনেমা ‘মিনিস্টার ফাটাকেষ্ট’ এর সঙ্গে তুলনা করছেন।

ওই ছবিতে মূখ্য চরিত্র মিঠুন চক্রবর্তীও জনগণের চাহিদা, অভিযোগ জানতে ও তা দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য পাড়ায় পাড়ায় এমনই ‘চিঠির বাক্স’ স্থাপন করেছিলেন।

বিষয়টির ব্যাপক প্রশংসা করে স্থানীয়রা জানান, ‘চিঠির বাক্স’ বসিয়ে সাধারণ জনগণের কাছ থেকে বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে চিঠি আহ্বান করেছেন এমপি শেখ তন্ময়।

এমন উদ্যোগ দেশের আর কোনো সংসদ সদস্য নেয়নি জানিয়ে তরুণ এই এমপির ব্যতিক্রমী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান তারা।

জানা গেছে, প্রতি মাসে একবার এই ‘চিঠির বাক্স’ খোলেন স্বয়ং এমপি শেখ সারহান নাসের তন্ময়। তিনি নিজেই জনগণের লেখা চিঠিগুলো পড়েন। বাক্সের চাবিও তার কাছেই থাকে। চিঠিপত্র পড়ে পদক্ষেপ নেন তিনি।

এ বিষয়ে শহীদ শেখ আবু নাসের মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে সংসদ সদস্যের পক্ষ থেকে এমন উদ্যোগ গ্রহণ নিঃসন্দেহে দৃষ্টান্ত। দেশের অন্য কোথাও কোনো এমপিকে ইতোপূর্বে এমন উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি।

এর মাধ্যমে বাগের হাটে দুর্নীতি ও অপরাধ বন্ধ হবে এবং যে কোনো সমস্যার দ্রুত সমাধান হবে বলে মনে করেন তিনি।

এ চিঠির বাক্সে জমা পড়া অভিযোগের বিষয়ে এমপি তন্ময় বিভিন্ন পদক্ষেপও নিয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।



মন্তব্য চালু নেই