বাজার নিয়ন্ত্রণে মাঠে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর

নিয়ম ভেঙে বেশি দামে পণ্য বিক্রিসহ বাজার পরিস্থিতি তদারকিতে অভিযান চালাচ্ছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বুধবার জামালপুর, ফেনী ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন বাজারে এসব অভিযানে কয়েকজন ব্যবসায়ীকে জরিমানা করে অর্থ আদায় করা হয়েছে।

এদিন জামালপুর সদরের পাঁচ ব্যবসায়ীকে এক লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জরিমানা দিয়েছেন ফেনী শহরের ইসলামপুর সড়কের কামাল এন্ড ব্রাদার্স, ফওজিয়া এন্টারপ্রাইজ ও ফেনী ট্রেডার্স।

এছাড়া হবিগঞ্জ শহরের টাউন হল রোডের খাজা গার্ডেন সিটির এক্সপ্লোর টেলিকম, চৌধুরী বাজার এলাকার শামীম স্টোর এবং শেখ জুলি স্টোরকে জরিমানা করা হয়েছে।

এ তিন জেলা থেকেই ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জনস্বার্থে তাদের অভিযান অব্যাহত রাখবেন বলে জানিয়েছেন।

ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণার পর দেশের বাজারে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম চড়ে যাওয়ায় তা নিয়ন্ত্রণে মাঠে নামে কর্তৃপক্ষ।

জামালপুরে সোয়া লাখ টাকা জরিমানা
বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি ও মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় এ জেলার বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

জামালপুর পৌরসভার ডাকপাড়ার আলহাজ জহুরুল হক কাঁচা বাজারের সিয়াম সিনান এন্টারপ্রাইজ, মেসার্স ভাই ভাই ট্রেডার্স, মেসার্স দিদার এন্টারপ্রাইজ ছাড়াও নান্দিনা বাজারে দুই ব্যবসায়ীকে জরিমানা দিতে হয়েছে।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সার্বক্ষণিক বাজার মনিটরিং এসব অভিযানে সহযোগিতা করছে এনএসআই, র‌্যাব, পুলিশ ও প্রশাসন।

বুধবার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার মনিটরিং করতে নান্দিনা ও বাঁশচড়া বাজারে যান জামালপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াছমিন।

ফরিদা জানান, নান্দিনা বাজারে অতিরিক্ত মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করায় দুই ব্যবসায়ীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।

জামালপুর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আরিফুল ইসলাম জানান, আলহাজ জহুরুল হক কাঁচা বাজারে র‌্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতে নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইবনুল আবেদীন।

সেখানে অতিরিক্ত মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি এবং মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করার অভিযোগে সিয়াম সিনান এন্টারপ্রাইজের ব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলামকে ৩০ হাজার টাকা, মেসার্স ভাই ভাই ট্রেডার্সের স্বত্তাধিকারী আব্দুল জলিলকে ৩০ হাজার টাকা এবং মেসার্স দিদার এন্টারপ্রাইজের স্বত্তাধিকারী দিদারুল আলমকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯-এর ৩৮ ধারায় এসব জরিমানা করা হয়েছে।

এ সময় তিনি ছাড়াও র‌্যাব-১৪ জামালপুরের কোম্পানি কমান্ডার এমএম সবুজ রানা, স্কোয়াড কমান্ডার আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা আসার আগে জামালপুরের হাট-বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছিল। এখন তা ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজি দরে হাকা হচ্ছে।

ফেনীতে তালিকার চেয়ে বেশি দামে বেচায় জরিমানা
ফেনীতে পেঁয়াজের আড়তে ক্রয় মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত মুনাফা করে বিক্রয়ের অভিযোগে তিন ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বুধবার সকালে শহরের ইসলামপুর রোডে মূল্য তালিকায় প্রদর্শিত দামের চেয়ে বেশিতে বিক্রি করায় এক প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা এবং অন্য আরো দুইটি প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে অধিদপ্তরের ফেনীর সহকারী পরিচালক সোহেল চাকমা।

সোহেল চাকমা জানান, দ্রব্যমূল্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে বাজার তদারকির অংশ হিসেবে শহরের ইসলামপুর সড়কের আড়ৎগুলোয় অভিযান চালানো হচ্ছে।

এ অভিযানে শহরের ইসলামপুর রোডের কামাল এন্ড ব্রাদার্স নামে এক প্রতিষ্ঠানে গিয়ে মূল্য তালিকায় পেঁয়াজের পাইকারি দাম ৬৫ টাকা দেখতে পান। কিন্তু রেজিস্ট্রার পরীক্ষা করে দেখা যায় তারা প্রতি কেজি বিক্রি করেছেন ৭০ টাকায়।

মূল্য তালিকার চেয়ে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করায় প্রতিষ্ঠানটিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়া পেঁয়াজের মূল্য তালিকা না থাকায় বাজারের ফওজিয়া এন্টারপ্রাইজ ও ফেনী ট্রেডার্সকে পাঁচ হাজার টাকা করে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় বলেন তিনি।

সহকারী পরিচালক সোহেল চাকমা আরো জানান, পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে জেলায় অভিযান অব্যাহত থাকবে।

অভিযানের সময় জেলা বাজার কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ, ব্যবসায়ী সমিতির নেতারাসহ আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

হবিগঞ্জে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা
হবিগঞ্জে পেঁয়াজের অতিরিক্ত মূল্য রাখাসহ বিভিন্ন অভিযোগে তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিককে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা করে আদায় করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বিকেলে শহরের চৌধুরী বাজার এবং টাউন হল রোড এলাকায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক দেবানন্দ সিনহার নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

সহকারী পরিচালক দেবানন্দ সিনহা জানান, শহরের টাউন হল রোড এলাকার খাজা গার্ডেন সিটির তৃতীয় তলায় এক্সপ্লোর টেলিকমে ভারতীয় চোরাই রেডমি-৯ ২টা এবং রেডমি নোট-৮ ২টা রাখার অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইনে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এছাড়াও চৌধুরী বাজার এলাকায় শামীম স্টোর এবং শেখ জুলি স্টোরে পেঁয়াজের অতিরিক্ত মূল্য রাখাসহ বিভিন্ন অভিযোগে চার হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

জনস্বার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনিও জানিয়েছেন।

গত সোমবার ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈদেশিক বাণিজ্য অধিদপ্তর কাঁটা টুকরা ও গুঁড়া ছাড়া সব ধরনের পেঁয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে তাদের এক নোটিফিকেশনে বলা হয়। এ ঘোষণার পর সীমান্তে বাংলাদেশ অভিমুখী পেঁয়াজের ট্রাক আটকে দেন ভারতীয় ব্যবসায়ীরা। এরপর থেকে দেশের সব বাজারে এক লাফে পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে দেয় বিক্রেতারা।



মন্তব্য চালু নেই